১. শিবৃক । 

 

২. মা - বাপের নাফরমানী করা অর্থাৎ , তাদের হক আদায় না করা । 

 

৩. “ কাতৃয়ে রেহমী ” করা অর্থাৎ , যে সব আৱীয়দের সাথে রক্তের সম্পর্ক রয়েছে তাদের সাথে অসদ্ব্যবহার করা ও তাদের হক নষ্ট করা 

। 

৪. যেনা করা অর্থাৎ , নারীর সতীত্ব নষ্ট করা এবং পুরুষের চরিত্র নষ্ট করা ।

 

৫. বালকদের সাথে কুকর্ম করা । 

 

৬. হস্ত মৈথুন করা । 

 

৭. প্রাণীর সাথে কুকর্ম করা ।

 

 ৮. আমানতের খেয়ানত করা । 

 

৯. মানুষ খুন করা । 

 

১০.মিথ্যা তােহমত বা অপবাদ লাগানাে , বিশেষভাবে যেনার অপবাদ লাগানাে । 

 

১১. মিথ্যা সাক্ষ্য দেয়া । 

 

১২. সাক্ষ্য গােপন করা , যখন অন্য কেউ সাক্ষ্য দেয়ার না থাকে । 

 

১৩. যাদু দ্বারা কারও ক্ষতি সাধনের চেষ্ট করা ।

 

  ১৪. যাদু শিক্ষা করা এবং শিক্ষা দেয়া ।

 

 ১৫. অঙ্গীকার ভঙ্গ করা , ওয়াদা খেলাফ করা , কথা দিয়ে তা ঠিক না রাখা । 

 

১৬. গীবত করা ।

 

 ১৭.স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীকে , মনীবের বিরুদ্ধে চাকরকে , উস্তাদের বিরুদ্ধে শাগরেদকে , রাজার বিরুদ্ধে প্রজাকে , কর্তার বিরুদ্ধে কর্মচারীকে ক্ষেপিয়ে তােলা ।

 

১৮. নেশা করা । 

 

১৯. জুয়া খেল্য !

 

২০. সূদ অনেক প্রকারের আছে- সরল সূদ , চক্রবৃদ্ধি সূদ ইত্যাদি সর্বপ্রকারের সূদই মহাপাপ । সূদ দাতা , সূদ গ্রহীতা , সূদের লেন - দেনে সাক্ষদাতা ও সূদ বিষয়ক লেন - দেনের দলীল লেখক সকলের প্রতি রাসূল ( সাঃ ) লানত করেছেন । সকলেরই কবীরা গােনাহ হয়|

 

২১ , ঘুষ বা রেশওয়াত প্রদান ও গ্রহণের কারণে আল্লাহর অভিশাপ অবতীর্ণ হয় , এটা মহাপাপ । তবে জালেমের জুলুমের কারণে নিজের হক আদায় করার জন্য ঠেকায় পড়ে ঘুষ দিলে তা পাপ নয় । কিন্তু ঘুষ দিয়ে কার্য উদ্ধার করার মনােবৃত্তি ভাল নয় । যাদের বেতন ধার্য আছে তারা কর্তব্য কাজ করে দিয়ে অতিরিক্ত যা কিছু নিবে সবই ঘুষ , চাই একটা সিগারেট হােক বা এক কাপ চা বা একটা পানই হােক । 

 

২২. অন্যায়ভাবে কারও স্থাবর বা অস্থাবর সম্পত্তি হরণ বা ভােগ দখল করা । 

 

২৩. অনাথ , এতীম , নিরাশ্রয় বা বিধবার মাল গ্রাস করা। 

 

২৪. খােদার ঘর যিয়ারতকারী তথা হজ্জযাত্রীদের প্রতি দুর্ব্যবহার করা ।

 

 ২৫. মিথ্যা কছম করা । 

 

২৬. গালি দেয়া । 

 

 ২৭. অশ্লীল কথা বলা । 

 

২৮. জেহাদের ময়দান থেকে পলায়ন করা । 

 

২৯. ধােকা দেয়া । 

 

৩০ , অহংকার করা ।

 

 ৩১. চুরি করা । 

 

৩২. ডাকাতি ও লুটতরাজ করা , এমনিভাবে পকেট মারা , ছিনতাই করা ।

 

 ৩৩. নাচ , গান - বাদ্য সিনেমা ইত্যাদি !

 

৩৪. স্বামীর নাফরমানী করা , অর্থাৎ , স্বামীর হক আদায় না করা । 

 

 ৩৫. জায়গা যমীর আইল ( সীমানা ) নষ্ট করা । ৩৬. শ্রমিক থেকে কাজ পূর্ণ নিয়ে তার পূর্ণ মজুরী না দেয়া বা পূর্ণ মজুরী দিতে টালবাহানা করা ।

 

৩৭. মাপে কম দেয়া । 

 

৩৮ , মালে মিশাল দেয়া ।

 

৩৯. খরীদ্দারকে ধােকা দেয়া । 

 

৪০. দাইয়ুছিয়াত অর্থাৎ , নিজের বিবিকে বা অধীনস্থ কোন নারীকে পর পুরুষের সঙ্গে মেলামেশা করতে দেয়া , পর পুরুষের বিছানায় যেতে দেয়া , এসবের প্রতি সন্তুষ্ট থাকা । 

 

৪১. চোগলখুরী করা । 

 

 ৪২. গণকের কাছে যাওয়া !

 

৪৩. মানুষ বা অন্য কোন জীবের ফটো আদর করে ঘরে রাখা । 

 

৪৪. পুরুষের জন্য সােনার আংটি পরিধান করা । ৪৫. পুরুষের জন্য রেশমী পােষাক পরিধান করা । ৪৬. শরীরের রূপ ঝলকে- মেয়েলােকদের জন্য এমন পাতলা পােশাক পরিধান করা । 

 

৪৭. মহিলাদের জন্য পুরুষের এবং পুরুষের জন্য মহিলার পােশাক পরিধান করা ।

 

 ৪৮. গর্বভরে লুঙ্গি , পায়জামা , জামা ও প্যান্ট পায়ের নীচে ঝুলিয়ে চলা । 

 

 ৪৯. বংশ বদলানাে অর্থাৎ , পিতৃ পরিচয় বদলে দেয়া । 

 

৫০. মিথ্যা মােকাদ্দমা করা , মিথ্যা মােকাদ্দমার পরামর্শ প্রদান , তদবীর ও পায়রী করাও কবীরা গােনাহ । 

 

৫১. মৃত ব্যক্তির শরীয়ত সম্মত ওছিয়াত পালন না করা।

 

 ৫২. কোন মুসলমানকে ধােকা দেয়া ।

 

 ৫৩. গুপ্তচরবৃত্তি করা , অর্থাৎ , মুসলমান সমাজের এবং মুসলমান রাষ্ট্রের গুপ্ত ভেদ ও দুর্বল পয়েন্টের কথা অন্য সমাজের লােকের কাছে , অন্য রাষ্ট্রের কাছে প্রকাশ করা । 

 

৫৪. কাউকে মেপে দিতে কম দেয়া এবং মেপে নিতে বেশী নেয়া । 

 

৫৫. টাকা বা নােট জাল করা । 

 

৫৬. ইসলামী রাষ্ট্রের সীমান্ত প্রহরায় ক্রটি করা । ৫৭. দেশের জরুরী রসদ , খাদ্য বা হাতিয়ার চোরাচালান বা পাচার করা । 

 

৫৮. রাস্তা - ঘাটে , ছায়াদার কিম্বা ফলদার বৃক্ষের নীচে মল - মূত্র ত্যাগ করা । 

 

৫৯ , বাড়ি - ঘর , আনাচ - কানাচ , থালা - বাসন , কাপড় - চোপড় নােংরা ও গন্ধ করে রাখা ।

 

৬০. হায়েয বা নেফাছ অবস্থায় স্ত্রী সহবাস করা । ৬১. মলদ্বারে স্ত্রী সহবাস করা । 

 

৬২. যাকাত না দেয়া । 

 

৬৩. ইচ্ছা পূর্বক ওয়াক্তিয়া নামায কাযা করা । 

 

৬৪. জুমুআর নামায না পড়া ।

 

৬৫. বিনা ওজরে রােযা ভাঙ্গা ।

 

 ৬৬. রিয়া তথা লােক দেখানাের জন্য ইবাদত করা।৬৭. জনগণের কষ্ট হওয়া সত্ত্বেও দাম বাড়ানাের জন্য জীবিকা নির্বাহােপযােগী খাদ্য - দ্রব্য , জিনিসপত্র গােলাজাত করে রাখা । 

 

৬৮. মানুষের কষ্ট হয় এমন খাদ্য - দ্রব্যের মূল্য বৃদ্ধি দেখে খুশী হওয়া । 

 

৬৯. ষাড় বা পাঠার দ্বারা গাভী বা ছাগী পাল দিতে না দেয়া । পাল দেয়ার জন্য বিনিময় গ্রহণ করা জায়েয নয়।

 

৭০ , প্রতিবেশীকে ( ভিন্ন জাতির হলেও ) কষ্ট দেয়া।

 

 ৭১. পাড়া প্রতিবেশীর ঝী - বৌকে কু - নযরে দেখা। 

 

৭২. মাল থাকা বা মাল উপার্জনের শক্তি থাকা সত্ত্বেও লােভের বশবর্তী হয়ে সওয়াল করা । 

 

৭৩ , জনগণ চায় না তা সত্ত্বেও তাদের নেতৃত্ব দেয়া। ৭৪. কারণ ছাড়াই স্ত্রীর স্বামী সহবাসে অসম্মত হওয়া । 

 

৭৫. পরের দোষ দেখে বেড়ানাে ।

 

 ৭৬ , কারও জান , মাল বা ইজ্জতের হানি করা । ৭৭. নিজের প্রশংসা করা ।

 

৭৮ , বিনা দলীলে কারও প্রতি বদগােমানী করা ।

 

 ৭৯. ইলমে দ্বীনকে তুচ্ছ মনে করে ইলমে দ্বীন হাছিল না করা বা হাছিল করে আমল না করা ।

 

 ৮০. এমন কথা যা রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেননি বা এমন কোন কাজ যা রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম করেননি- সে সম্পর্কে এরূপ বলা যে , রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন বা রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম করেছেন । 

 

৮১. হজ্জ ফরয হওয়া সত্ত্বেও হজ্জ করা ব্যতীত মৃত্যুবরণ করা । তবে মৃত্যুর সময় হজ্জের ওছিয়াত বা ব্যবস্থা সম্পন্ন করে গেলে পাপমুক্ত হতে পারবে । ৮২. কোন সাহাবীকে মন্দ বলা , সাহাবীদের সমালােচনা করা ।

 

৮৩. হযরত আলী ( রাঃ ) -কে হযরত আবু বকর সিদ্দীক ( রাঃ ) থেকে শ্রেষ্ঠ বলা । 

 

৮৪. কোন নারীকে তার স্বামীর কাছে গমন ও স্বামীর হক আদায়ে বাধা দেয়া ।

 

৮৫. কোন অন্ধকে ভুল পথ দেখিয়ে দেয়া । 

 

৮৬. পৃথিবীতে অশান্তি সৃষ্টি করা ও অশান্তি ছড়ানাে , ফ্যাসাদ করা । 

 

৮৭. কাউকে কোন পাপ কাজে উদ্বুদ্ধ করা ও পাপ কাজে সহযােগিতা করা ।

 

 ৮৮ , কোন গােনাহে সগীরার উপর হটকারিতা করা । 

 

৮৯. পেশাবের ছিটা থেকে সাবধান সতর্ক না থাকা । 

 

৯০ , কোন দান - সদকা করে বা হাদিয়া - উপঢৌকন দিয়ে খোঁটা দেয়া ।

 

৯১. অনুগ্রহকারীর না - শুকরী করা । 

 

৯২. কোন মুসলমান ভাইকে ছুরি , চাকু , তলােয়ার ইত্যাদি লৌহ অস্ত্র দ্বারা ইশারা করে ভয় দেখানাে ।

 

 ৯৩ , দাবা ও ছক্কা পাঞ্জা খেলা । আরও কতিপয় খেলা রয়েছে যা হারাম ও কবীরা গােনাহ । 

 

 ৯৪. বিনা জরুরতে লােকের সামনে সতর খােলা । 

 

 ৯৫. মেহমানের খাতির ও আদর যত্ন না করা । 

 

৯৬ , হাসি - ঠাট্টা করে কাউকে অপমানিত করা ।

 

 ৯৭. স্বজন প্রীতি করা । 

 

৯৮ , অন্যায় বিচার করা । 

 

৯৯. নিজে ইচ্ছা করে , দাবী করে পদপ্রার্থী হওয়া বা পদ গ্রহণ করা । তবে কোন ক্ষেত্রে যদি এমন হয় যে , তিনিই একমাত্র উক্ত পদের যােগ্য , তিনি উক্ত পদ গ্রহণ না করলে বৃহত্তর জনগােষ্ঠির স্বার্থ নষ্ট হবে , তাহলে সে ক্ষেত্রে পদ চাওয়া হলে তা ভিন্ন কথা । 

 

১০০. ইসলামী রাষ্ট্রের রাষ্ট্রদ্রোহিতা করা ।

 

 ১০১. নিজের বিবি - বাচ্চার খবর - বার্তা না নিয়ে তাদেরকে নষ্ট হয়ে যেতে দেয়া । 

 

১০২. খতনা না করা মহাপাপ । 

 

 ১০৩ , অসৎ ও অন্যায় কাজ দেখে পারতপক্ষে তাতে বাধা না দেয়া । 

 

১০৪. জালেমের প্রশংসা বা তােষামােদ করা ।

 

 ১০৫ , অন্যায়ের সমর্থন করা । 

 

১০৬ , আত্মহত্যা করা ।

 

১০৭. স্বেচ্ছায় নিজের কোন অঙ্গ নষ্ট করা । 

 

১০৮ , স্ত্রী সহবাস করে গােসল না করা ।

 

 ১০৯ , প্রিয়জন বিয়ােগে সিনা পিটিয়ে বা চিৎকার করে কাঁদা । 

 

১১০. স্ত্রী পুরুষের নাভীর নীচের পশম , বগলের পশম বর্ধিত করে রাখা । 

 

১১১. উস্তাদ ও পীরের সঙ্গে বেয়াদবী করা , হাফেজ ও আলেমের অমর্যাদা করা , তাদের সাথে বেয়াদবী করা ।

 

 ১১২. প্রাণীর ছবি তৈরি করা বা ব্যবহার করা |

 

 ১১৩ , শুকরের গােস্ত খাওয়া । 

 

১১৪. কোন হারাম দ্রব্য ভক্ষণ করা ।

 

 ১১৫ , ষাঢ় , কবুতর বা মােরগ ইত্যাদির লড়াই দেয়া। 

 

১১৬. কুরআন শরীফ পড়ে ভুলে যাওয়া । ( কোন রােগের কারণে হলে তা ভিন্ন কথা ) কেউ কেউ বলেছেন ভুলে যাওয়ার অর্থ এমন হয়ে যাওয়া যে , দেখেও আর পড়তে পারে না । 

 

১১৭. কোন জীবকে আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে হত্যা করা কবীরা গােনাহ । তবে সাপ , বিচ্ছু , ভীমরুল ইত্যাদি কষ্টদায়ক জীব থেকে বাঁচার আর কোন উপায় না থাকলে ভিন্ন কথা ।

 

১১৮ , আল্লাহর রহমত থেকে নিরাশ হওয়া । 

 

১১৯ , আল্লাহর আযাব থেকে নির্ভীক হওয়া । 

 

১২০. মৃত প্রাণী খাওয়া । 

 

১২১ , হালাল জীবকে আল্লাহর নামে জবাই না করে অন্য কারও নামে জবাই করে বা অন্য কোন উপায়ে মেরে খাওয়া । 

 

১২২. অপব্যয় করা । 

 

 ১২৩. বখীলী বা কৃপণতা করা । 

 

১২৪. রাজকীয় ক্ষমতা হাতে থাকা সত্ত্বেও ইসলামী আইন সমর্থন না করে অনৈসানির নৈ সমর্থন করা । 

 

১২৫ , ইসলামী আইন হওয়া সত্ত্বেও ইসলামী আইন অমান্য করা বা রাষ্ট্রদ্রোহীতা করা ।

 

 ১২৬. ছােট জাত , ছােট ( পশাদার বলে বা জোলা , তেলি , কুমার , কামার , বান্দীর বাচ্চা ইত্যাদি না কাউকে তুচ্ছ তাচ্ছিল্য করা বা খোটা দেয়া । 

 

১২৭. বিনা এজাযতে বাড়ি তে বা ঘরের ভেতরে প্রবেশ করা 

 

১২৮. লুকিয়ে কারও কথা শােনা ।

 

 ১২৯. ছুরত শেকেলের কারণে বা গরীব হওয়ার কারণে কোন মুসলমানকে টিটকারি বা ঠাট্টা - বিদ্রুপ করা ।

 

 ১৩০. কোন মুসলমানকে কাফের বলা । 

 

১৩১. কোন মুসলমানের সাথে উপহাস করা । 

 

১৩২. একাধিক স্ত্রী থাকলে তাদের মধ্যে সমতা রক্ষা না করা । 

 

১৩৩. কোন খাদ্যকে মন্দ বলা । ( তবে রান্নার ক্রটি বর্ণনা করা হলে তা খাদ্যকে মন্দ বলার 

     অন্তর্ভুক্ত নয় । ) 

 

১৩৪. দুনিয়ার মহব্বত । অর্থাৎ , দ্বীনের মােকাবেলায় দুনিয়াকে প্রাধান্য দেয়া ।

 

 ১৩৫ , দাড়ি বিহীন বালকের প্রতি খাহেশাতের নজরে তাকানাে । 

 

১৩৬ , গায়রে মাহরাম স্ত্রী লােকের নিকট একা একা বসা । 

১৩৭. কাফেরদের রীতিনীতি পছন্দ করা ।